আজ ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর সোনামসজিদে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা

 

নিজস্ব প্রতিবেদক আল আমিন:

অর্থাৎ স্বাধীনতার উপর হামলা। বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল আলম যাকে শিবগঞ্জ উপজেলায় বঙ্গবন্ধু নামে সকলেই চিনতেন তার বড় ছেলে মোঃ আতাউর রহমান রাজু ও ছোট ছেলে ওমর ফারুক সুমন পেশায় আমদানী ও রপ্তানী কারক ২০১৬-২০১৭ সালের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সর্বোচ্চ করদাতা ২০১৩-২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের বিরোধিতা করে বিএনপি জামাত জোট সন্ত্রাসের রাজত্ব শুরু হয় সেই সময় হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়

আতাউর রহমান রাজুর ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানটি এবং হামলায় শিকার হন তার বাড়ি এই সেই শীর্ষ সন্ত্রাসী আইনাল হক এবং বিএনপি থেকে আসা সহবুল সেনাউল মিজান শীর্ষ সন্ত্রাসী জসিম এদের নেতৃত্ব দেন শান্তি কমিটির প্রধান সেতাউর রহমান আইনাল হকের আপন শশুর এদের বিষয়ে শিবগঞ্জ থানায় খবর নিয়ে জানা গেছে হত্যা গুম চাঁদাবাজি অস্ত্র আইনে ১৭ টার ও বেশি তাদের ওপরে মামলা রয়েছে তারা দীর্ঘদিন থেকে চাঁদাবাজি করে আসছেন চাঁদা না দিলে কন্টাক্ট এ খুন করেন একাধিকবার অস্ত্র সহকারে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন সন্ত্রাসী কায়দায় বহু পরিবারকে পঙ্গুত্ব জীবনযাপন করিয়েছেন এই সেই কুখ্যাত আইনাল এখন টার্গেট মুক্তিযোদ্ধার সন্তান পরপর তিনবার হামলা চালিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের উপর তিনি বেঁচে গেলেও মারাত্মকভাবে চাইনিজ কুড়াল ও রামদা দিয়ে মাথায় কোপ নিয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন এবং জখম হয়েছেন তাহার সহযোগী সুলতান মাহমুদ ও আলাল তারা এখন চিকিৎসাধীন অবস্থায় সরকারি মেডিকেল অবস্থান করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ