আজ ১৬ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

নারী সাংবাদিককে ম্যাসেঞ্জারে অশ্লীল ছবি প্রেরণ বিভিন্ন হুমকি, যুবক গ্রেপ্তার-দৈনিক বাংলার নিউজ

 

নোয়াখালী প্রতিনিধি: ম্যাসেঞ্জারে অনৈতিক প্রস্তাবের ইঙ্গিত দিয়ে অশ্লীল ছবি পাঠানোর অভিযোগে ইসমাইল হোসেন নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে সুধারাম থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টায় সুধারাম থানার এসআই মো. মফিজুর রহমান সঙ্গীয় ফোসসহ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে বেগমগঞ্জের চৌরাস্তা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী জাতীয় দৈনিক কালবেলা পত্রিকার নোয়াখলী জেলা প্রতিনিধি নারী সংবাদকর্মী সানজিদা হক অনু।

মামলার সুত্রে জানা যায়, ইসমাইল হোসেন নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে ঐ নারী সাংবাদিকের সাথে পরিচিত হয়। পরে তার ফেসবুক আইডিতে তার সাথে সম্পৃক্ত হয়। একপর্যায়ে সে ঐ নারী সাংবাদিকের ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে বার্তা পাঠায়। ভুক্তভোগী নারী সাংবাদিক তার এসব বার্তার কোনো উত্তর না দিয়ে তাকে বিভিন্ন মাধ্যমে সর্তক করে। এতে ইসমাইল হোসেন আরও বেপরোয়া হয়ে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ পর্নগ্রাফি ছবি পাঠাতে থাকে। নারী সাংবাদিক লোক লজ্জার ভয়ে প্রথমে কাউকে না জানালেও পরে সে বাধ্য হয়ে তার সহকর্মীদের এ বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করলে তারা তাকে আইনের আশ্রয় নিতে বললে সে সুধারাম মডেল থানায় নিজে বাদী হয়ে মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে পর্নগ্রাফি আইনে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত ইসমাইল হোসেন একজন স্বীকৃত নারী লিপ্সু, লম্পট ও প্রতারক। সে অন্যকে নিজের প্রতি আকৃষ্ট করতে সবসময় খুব স্মার্টলি চলাফেরা করে। নিজেকে বিভিন্ন লোকের কাছে কখনো পাথর ব্যবসায়ী, কখনো আইনজীবী, কখনো প্রশাসনিক কর্মকর্তা, কখনো মানবাধিকার কর্মকর্তা, কখনো সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে নানান ভাবে প্রতারণার মাধ্যমে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। প্রকৃত ভাবে সে এসব পেশার সাথে কোনো ভাবে জড়িত নয়। এছাড়া, দেশের অনুমোদিত কোনো প্রত্রিকা বা টেলিভিশন চ্যানেলের সাথে তার সম্পৃত্ততা নেই। মূলত সে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে বিভিন্ন নামে আইডি খুলে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চলে। তার মূল লক্ষ্য থাকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত রাজনৈতিক নেতা, ব্যবসায়িক, ঠিকাদার, ডাক্তারসহ বিভিন্ন লোকজনের সাথে সখ্য গড়ে তুলে এক সময় নানা রকম অজুহাতে তাদের নিকট মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করে। কেউ তার এ প্রস্তাবে রাজি না হলে তখন সে দাবিকৃত টাকার বিনিময়ে নিজ নামীয় ব্যাংক অ্যাকাউন্টের চেক প্রদান করবে বলে আশ্বাস্ত করে।

এ বিষয়ে সুধারাম মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. জাকির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভুক্তভোগী নারী সাংবাদিক একটি অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি আমরা গুরুত্ব সহকারে আমলে নিয়ে অপরাধী ইসমাইল হোসেনকে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে বেগমগঞ্জ চৌরাস্তা থেকে রাত সাড়ে ১১টার দিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হই। বুধবার (৬ এপ্রিল) তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ