আজ ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ অন্ধকল্যাণ সমিতি কমিটির দাবীদার দু-গ্রুপ।। আ. ওদুদ ও আ. হাকিম-দৈনিক বাংলার নিউজ

ফাহিম ফরহাদ চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতির চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখা পরিচালিত চক্ষু হাসপাতাল দখলের অভিযোগ করেছেন চলতি কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাকিম। তার অভিযোগ,বৃহস্পতিবার (২ জুন২০২২খ্রি.) সকালে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ দলবল নিয়ে চক্ষু হাসপাতালটি দখলে নেন।

উল্লেখ্য…
গত ২১ মে ২০২২খ্রি. জেলা নির্বাচন কমিশন (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) দপ্তরের চেয়ারম্যান নাজমুল আবেদীন টুবলু সাক্ষরিত জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার নবনির্বাচিত কমিটির অনুমোদন দেয়া হয় বলে জানা যায় এক সূত্রে। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদকে কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সৈয়দা কানিজ ফাতেমা মিতুকে অনুমোদন দেয়া হয় বলে জানায় আ. ওদুদ সমর্থকরা।

এরই ধারাবাহিকতায়
বৃহস্পতিবার (০২ জুন২০২২খ্রি.) বেলা ১১টার সময় নবনির্বাচিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদের নেতৃত্বে সমিতির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ চক্ষু স্ব-দলবলে হাসপাতালে যান এবং নতুন কমিটির প্রথম সভা করেন। তবে এসময় চলমান কমিটি দাবীদার আ. হাকিমের কোন সদস্য এই সভায় উপস্থিত হননি বা নতুন কমিটিকে দায়িত্ব হস্তান্তর করেনি। এর আগে নতুন কমিটির সভাকে নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে টানটান উত্তেজনার সৃষ্টি হলে, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে জেলা পুলিশের নির্দেশনায় সদর থানা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

এ সময় আ. ওদুদ ও তার সঙ্গে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শরিফুল আলম, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুল জলিল, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ডা. সাইফ জামান আনন্দ পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সালসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের প্রায় তিন শতাধিক নেতাকর্মী, এবং সন্ত্রাস বাহিনী উপস্থিত ছিলেন বলেও অভিযোগ করেন আব্দুল হাকিম।

এর আগে আ. হাকিমসহ চক্ষু হাসপাতালে থেকে চলমান কমিটির সদস্যদের অফিস কক্ষ থেকে বের করে দেয় পুলিশ অভিযোগে গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন আ. হাকিম। পরে জোরপূর্বক হাসপাতাল দখলে নেয়ার অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেন আব্দুল হাকিম।

সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল হাকিম বলেন, কমিটি নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। আগামী ৭ জুলাই শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত। আহ্বায়ক কমিটির চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক মিলে অপকৌশল করে অবৈধ কমিটির গঠন করেছেন।

সম্মেলনে আ. হাকিম আরও বলেন,(২জুন২০২২খ্রি.) বৃহস্পতিবার সকালে ‘গুন্ডা-মাস্তান’ বাহিনী নিয়ে চক্ষু হাসপাতাল দখলে নেয় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ। এর আগে সকালে হাসপাতাল থেকে পুলিশ আমাকে বের করে দিয়েছে। এতে হাসপতালটির চিকিৎসাসেবা ব্যহত হবে বলেও আশঙ্কা ব্যাক্ত করেন তিনি।

অভিযোগ প্রসঙ্গে বর্তমান কমিটির ভাইস চেয়াম্যান খাদেমুল ইসলাম বলেন, আব্দুল হাকিম ছিলেন ৬ষ্ঠ মেয়াদের কমিটির সাধরণ সম্পাদক। গত বছর ওই কমিটির মেয়াদ শেষ হয়। পরে এডহক কমিটি গঠন করা হয়। আব্দুল হাকিমও ওই কমিটির সদস্য ছিলেন। তবে নতুন কমিটি গঠনে কোনো সহযোগিতা না করে পদ দখলে রেখেছিলেন। এর পরে নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে।

খাদেমুল ইসলাম বলেন, আব্দুল হাকিম হুমকি দেয়ার কারণে বর্তমান কমিটির চেয়ারম্যান দলবল নিয়ে চক্ষু হাসপাতালে গিয়েছিলেন।

বর্তমান কমিটির চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ বলেন, আগের কমিটির মেয়াদ ৬ মাস আগেই শেষ হয়ে গেছে। কমিটির নির্বাচনের সময় কেউ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি। সুতরাং আমরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছি।

মামলার বিষয়ে তিনি বলেন, আব্দুল হাকিম কোনো মামলার বাদি নন। ফলে এখানে মামলা সংক্রান্ত কোনো জটিলতা নেই।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মোজাফফর হোসেন বলেন, কমিটি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কী ঝামেলা রয়েছে তা তার জানা নেই। তবে এ নিয়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হলে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়। তবে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এলাকায় আইনস্রৃঙ্খলা স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান পুলিশ।

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ