আজ ১৩ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চোরের উপর বাটপারির অভিযোগ উঠেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে-দৈনিক বাংলার নিউজ

প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়ন পরিষদে গত ০৯জুন ২২খ্রি. বিকেলে চুরির অভিযোগে মো. আরিফুল ইসলাম ভটা (২৩) পিতা, মো. দুলাল, মাতা, মোসা. রেজিনা বেগম নামে এক ব্যাক্তিকে চোর সাব্যস্ত করে এলাকাবাসি আটক করে। মো. আরিফুল ইসলাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার পিটিআই বস্তিপারা নিবাসি মো. দুলাল ও মোসা. রেজিনা বেগম দম্পতির ছেলে। পরে মহারাজপুর কাউন্সিল চেয়ারম্যান রাজন ও ইউপি কাউন্সিলর তহরুলের উপস্থিতিতে শালিস করা হয় দাবী ভিকটিম পরিবারের। সালিশে আরিফুলের বিরুদ্ধে নানা কিছু চুরির অভিযোগে ৩লক্ষ্য ৫০০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। পরিবারে খবর পেয়ে টাকা পয়সা নিয়ে সালিশের জরিমানা সম্পন্ন করার পর ষ্ট্যাম্পে জোর পূর্বক সই নেয়া হয়, পরে আরিফুলের মটরবাইক মুঠোফোন ও আরও কিছু টাকা জোরপূর্বক, উপস্থিত চেয়ারম্যান ও মেম্বারের লোকজন মারফত কেড়ে নেয়ার অভিযোগ জানায় আরিফুলের পরিবার। আরিফুলের পরিবার জানায় ধার দেনা করে ছেলেকে নিয়ে আসতে যাই। আমার ছেলেকে ওরা অনেক মারধর করে আমাকেও লাঞ্ছিত করে। পরে পুলিশ ডেকে পুলিশে দিয়ে দেয়। এ বিষয়ে কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের সাথে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তারা একে অপরের দিকে দোষ দেয়, চেয়ারম্যান রাজন বলেন ৫০০০০টাকা লেনদেন হয়, মটরবাইক ও অন্যান্য মালামাল নেয়ার বিষয়ে অজানা তিনি। পরে তদন্ত করে জানাবো বলে আর কিছু জানায় নি। অপর দিকে পুলিশ ছেরে দেবার কথা বলে ২দফায় ২জন নাম না জানা পুলিশ প্রায় ২৫০০০টাকাও নেয় অভিযোগ আরিফুলের পরিবারের। আরিফুলের মা বলেন টাকা নিয়ে ছেলেকে ছারার কথা বল্লেও, টাকা নেয়ার পর পুলিশ আমার ছেলেকে ছারে না গনমাধ্যমে অভিযোগ করে বলেন আরিফুলের মা। গত ১১জুন রাতে আবার পুলিশ আরিফুলের বড় ভাই রেজাউলের পিটিআই বাড়িতেও দরজা ভেঙ্গে জোরপূর্বক ঘর তল্লাশি করে বলে অভিযোগ জানায় আরিফুলের বড় ভাই। এ বিষয়ে পুলিশ জানায় নিদৃষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ঘর তল্লাশি করতে যাওয়া হয়েছিলো, এতে কোনও মালামাল উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। তবে এহেন ঘটনায় ভিকটিম পরিবার আইনি সহায়তা পাচ্ছেনা দাবী করে গণমাধ্যমে অভিযোগ জানান। ভিকটিম আরিফুলের মা বলে আমরা জেলা পুলিশ সুপারসহ প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন আমাদের সুস্থ বিচার নিশ্চিত করা হউক। আমার ছেলেকে হাতেনাতে ধরেনি আগের চুরির সন্দেহ করে হামলা মামলা দেন দরবার করা হয়। পুলিশ জানায় মামলা আদালতে চলমান আইনের গতীতে চলবে। এক প্রশ্নের জবাবে সদর থানা পুলিশের এসআই জাহাঙ্গীর বলে, নতুন স্টেডিয়াম চাঁপাইনবাবগঞ্জ এলাকায় একটি চুরির ঘটনায় জরিত সন্দেহে আরিফকে আটক করা হয়। তিনি আরও বলে মহারাজপুর কাউন্সিল এলাকার রাস্তা হতে তাকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়। তিনি আরও বলেন আরিফুলের মালামাল জোর করে রেখে দেয়ার বিষয়ে নিদৃষ্ট অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, সদর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফ্ফর হোসেন বলেন আরিফুল ভটা চোর নামে পরিচিত, তার নামে পূর্বেরও একাধিক চুরির মামলা রয়েছে। এসআই জাহাঙ্গীর বলেন আদালতে মামলার তদন্ত সুষ্ঠ করতেই ৫ দিন রিমান্ড আবেদন করা হয়, আদালত ২দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিস্তারিত জানাবেন।

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ